ঢাকা ০৫:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ :
Logo হাজারো অসহায়ের মাঝে ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন মেয়র Logo কল্পলোক আবাসিক মসজিদের জায়গা ব্যক্তির নামে বরাদ্দ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন Logo নিঃস্বার্থে মানব সেবা গ্রুপের ঈদ উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  Logo ফুলপুরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট,ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য Logo রামপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মোঃ আবুল কাশেমের মৃত্যুতে Logo Logo “মুসলিম কমিউনিটি মৌলভীবাজার” এর তাৎপর্য‍‍` শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo মশা নিয়ন্ত্রণে গবেষণার জন্য গবেষণাগার চালুর ঘোষণা দিয়েছেন Logo বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হৃদয়ে -চেতনায় বাংলাদেশ Logo সাউদার্ন ইউনিভার্সিটিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন

মৌলভীবাজার চাঁদনীঘাট বাসস্ট্যান্ডে পার্কিং একটি বাসের ভিতর আগুনে পুড়ে ছাই

 মোঃ জালাল উদ্দিন
  • আপডেট সময় : ০৩:৩০:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩ ১১৯ বার পড়া হয়েছে
 মৌলভীবাজার শহরের চাঁদনীঘাট বাসস্ট্যান্ডে পার্কিং করা একটি বাস আগুনে পুড়ে গেছে। বাসটির মালিক হেলাল মিয়া, তিনি গাড়ির মালিক হলেও নিজেই গাড়ি চালান। তিনি বলেন, এটাই তাঁর আয়ের উৎস। পাঁচ-ছয় বছর ধরে মৌলভীবাজার-কুলাউড়াসহ বাস মালিক সমিতির নির্ধারিত লাইনে গাড়িটি তিনি চালিয়ে আসছেন। প্রতিদিনের ন্যায় বাসটি বন্ধ করে আমি বাড়িতে চলে যাই বিকেল ৫টার সময়। গত রাত সাড়ে ১১টার সময় শুনতে পাই আমার বাসে আগুন লেগেছে। রাতেই রওয়ানা দিয়ে রাত ১.৩০ মিনিটে এসে দেখি গাড়ির ভিতরের সবকিছু পুড়ে গেছে।
তিনি বলেন, প্রায় ছয় বছর আগে গাড়িটি কিনি কিস্তিতে কিনেছি। এই গাড়ির পিছনে প্রায় ২৫ লাখ টাকা খরচ করেছি। সব শেষ হয়ে গেলো। তবে হেলপার রেজুর বরাত দিয়ে হেলাল মিয়া বলেন, রেজু প্রথমে দোকানে টিভি দেখছিলো। পরে সে দোকান থেকে ঘুমানোর জন্য কয়েল কিনে আসার সময় দেখে গাড়ির ভিতরে আগুন জ্বলছিলো। তখনই চিৎকার দিয়ে সবাইকে জানায়।
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ফায়ার সার্ভিস বলছে, কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা যীশু তালুকদার জানান, ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া গাড়ির পিছনের অংশ পুড়ে গেছে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, গাড়ির ভিতরে হেলপার ঘুমাচ্ছিলো কয়েল জ্বালিয়ে। সে খেয়াল না করে ঘুমিয়ে পড়ে। ততোক্ষণে আগুন ধরে যায়। মৌলভীবাজার থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, কি কারণে বাসে আগুন লাগলো সেটা এখনো জানা যায়নি। তদন্ত চলছে।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান, সেখানে পুলিশের ১০-১২ জনের একটা দল ছিল। এবং যেখানে বাসটি পুড়েছে তার সামনে কয়েকটি দোকান ছিল তাই কারো পক্ষে আগুন লাগানো সহজ নয়। তবে স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

মৌলভীবাজার চাঁদনীঘাট বাসস্ট্যান্ডে পার্কিং একটি বাসের ভিতর আগুনে পুড়ে ছাই

আপডেট সময় : ০৩:৩০:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩
 মৌলভীবাজার শহরের চাঁদনীঘাট বাসস্ট্যান্ডে পার্কিং করা একটি বাস আগুনে পুড়ে গেছে। বাসটির মালিক হেলাল মিয়া, তিনি গাড়ির মালিক হলেও নিজেই গাড়ি চালান। তিনি বলেন, এটাই তাঁর আয়ের উৎস। পাঁচ-ছয় বছর ধরে মৌলভীবাজার-কুলাউড়াসহ বাস মালিক সমিতির নির্ধারিত লাইনে গাড়িটি তিনি চালিয়ে আসছেন। প্রতিদিনের ন্যায় বাসটি বন্ধ করে আমি বাড়িতে চলে যাই বিকেল ৫টার সময়। গত রাত সাড়ে ১১টার সময় শুনতে পাই আমার বাসে আগুন লেগেছে। রাতেই রওয়ানা দিয়ে রাত ১.৩০ মিনিটে এসে দেখি গাড়ির ভিতরের সবকিছু পুড়ে গেছে।
তিনি বলেন, প্রায় ছয় বছর আগে গাড়িটি কিনি কিস্তিতে কিনেছি। এই গাড়ির পিছনে প্রায় ২৫ লাখ টাকা খরচ করেছি। সব শেষ হয়ে গেলো। তবে হেলপার রেজুর বরাত দিয়ে হেলাল মিয়া বলেন, রেজু প্রথমে দোকানে টিভি দেখছিলো। পরে সে দোকান থেকে ঘুমানোর জন্য কয়েল কিনে আসার সময় দেখে গাড়ির ভিতরে আগুন জ্বলছিলো। তখনই চিৎকার দিয়ে সবাইকে জানায়।
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ফায়ার সার্ভিস বলছে, কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা যীশু তালুকদার জানান, ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া গাড়ির পিছনের অংশ পুড়ে গেছে। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, গাড়ির ভিতরে হেলপার ঘুমাচ্ছিলো কয়েল জ্বালিয়ে। সে খেয়াল না করে ঘুমিয়ে পড়ে। ততোক্ষণে আগুন ধরে যায়। মৌলভীবাজার থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, কি কারণে বাসে আগুন লাগলো সেটা এখনো জানা যায়নি। তদন্ত চলছে।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান, সেখানে পুলিশের ১০-১২ জনের একটা দল ছিল। এবং যেখানে বাসটি পুড়েছে তার সামনে কয়েকটি দোকান ছিল তাই কারো পক্ষে আগুন লাগানো সহজ নয়। তবে স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।