ঢাকা ০৪:০৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ :
Logo হাজারো অসহায়ের মাঝে ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন মেয়র Logo কল্পলোক আবাসিক মসজিদের জায়গা ব্যক্তির নামে বরাদ্দ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন Logo নিঃস্বার্থে মানব সেবা গ্রুপের ঈদ উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  Logo ফুলপুরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট,ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য Logo রামপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মোঃ আবুল কাশেমের মৃত্যুতে Logo Logo “মুসলিম কমিউনিটি মৌলভীবাজার” এর তাৎপর্য‍‍` শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo মশা নিয়ন্ত্রণে গবেষণার জন্য গবেষণাগার চালুর ঘোষণা দিয়েছেন Logo বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হৃদয়ে -চেতনায় বাংলাদেশ Logo সাউদার্ন ইউনিভার্সিটিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন

পিয়াজ বেশি দামে বিক্রি করার দায়ে শ্রীমঙ্গলে ২ ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

মোঃ জালাল উদ্দিন।
  • আপডেট সময় : ০৬:০৩:৪০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩ ৬৫ বার পড়া হয়েছে
 নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ন্যায্য দামে ও নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চত করার লক্ষে মৌলভীবাজার জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে পিয়াজের বাজারে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে বেশি দামে পিয়াজ বিক্রি করার দায়ে শ্রীমঙ্গলের ২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে।
শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ইং, দুপুরে শ্রীমঙ্গল উপজেলার সেন্ট্রাল রোডে পিয়াজের পাইকারী বাজারে সচেতনতামূলক ও মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।এ সময় মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও পিয়াজের সংকট দেখিয়ে বেশি দরে পিয়াজ বিক্রয় করার অভিযোগে সেন্ট্রাল রোডে অবস্থিত মেসার্স পাল ভান্ডারকে ২০ হাজার টাকা ও মেসার্স আমির ট্রেডার্সকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও তা আদায় করা হয়।
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর এর মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, র‌্যাব-৯ ফোর্সের শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প এর সহায়তায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ন্যায্য দামে প্রাপ্তি নিশ্চিত করার লক্ষে ২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও তা আদায় করা হয়।
নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ন্যায্য মূল্যে প্রাপ্তি এবং নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিতকরণে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং ও তদারকি কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান তিনি।
এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভোক্তা বলেন যাদেরকে জরিমানা করা হচ্ছে ওরা হলেন ফুটি মাছ, আসল রাগব বোয়ালরা রয়ে যান ধরা ছুয়ার বাহিরে।
জরিমানা আরোপ করার পর ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট আরো তৎপর হয়ে উঠে জরিমানার টাকা আদায় করার জন্য। বেশি দামে পণ্য বিক্রি করলেও খুচরা ব্যবসায়ীরা মুখ খুলেন না আড়ৎদারদের বিরুদ্ধে, কারণ নগদে বাঁকিতে পন্য ক্রয় করতে হলে পাইকারি বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কথা বললে বাকিতে মাল বিক্রয় করেন না। এর সুযোগে খুচরা ব্যবসায়ীরা আরো চড়া মুল্যে পিয়াজ বিক্রি করছেন ভোক্তা অধিকার আইনকে অমান্য করে।
স্থানীয় ভোক্তারা বলেন, শুধু জরিমানা করে তাদের ছেড়ে দিলে হবে না নুন্যতম তিনদিনের জেল হাজতে পাঠাবে হবে। এতে তাদের আর্থিক জরিমানাও হবে পাশাপাশি সাজাও পাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

পিয়াজ বেশি দামে বিক্রি করার দায়ে শ্রীমঙ্গলে ২ ব্যবসায়ীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

আপডেট সময় : ০৬:০৩:৪০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩
 নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ন্যায্য দামে ও নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চত করার লক্ষে মৌলভীবাজার জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে পিয়াজের বাজারে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে বেশি দামে পিয়াজ বিক্রি করার দায়ে শ্রীমঙ্গলের ২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে।
শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ইং, দুপুরে শ্রীমঙ্গল উপজেলার সেন্ট্রাল রোডে পিয়াজের পাইকারী বাজারে সচেতনতামূলক ও মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।এ সময় মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও পিয়াজের সংকট দেখিয়ে বেশি দরে পিয়াজ বিক্রয় করার অভিযোগে সেন্ট্রাল রোডে অবস্থিত মেসার্স পাল ভান্ডারকে ২০ হাজার টাকা ও মেসার্স আমির ট্রেডার্সকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও তা আদায় করা হয়।
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর এর মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, র‌্যাব-৯ ফোর্সের শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প এর সহায়তায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ন্যায্য দামে প্রাপ্তি নিশ্চিত করার লক্ষে ২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও তা আদায় করা হয়।
নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ন্যায্য মূল্যে প্রাপ্তি এবং নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তি নিশ্চিতকরণে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং ও তদারকি কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান তিনি।
এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভোক্তা বলেন যাদেরকে জরিমানা করা হচ্ছে ওরা হলেন ফুটি মাছ, আসল রাগব বোয়ালরা রয়ে যান ধরা ছুয়ার বাহিরে।
জরিমানা আরোপ করার পর ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট আরো তৎপর হয়ে উঠে জরিমানার টাকা আদায় করার জন্য। বেশি দামে পণ্য বিক্রি করলেও খুচরা ব্যবসায়ীরা মুখ খুলেন না আড়ৎদারদের বিরুদ্ধে, কারণ নগদে বাঁকিতে পন্য ক্রয় করতে হলে পাইকারি বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কথা বললে বাকিতে মাল বিক্রয় করেন না। এর সুযোগে খুচরা ব্যবসায়ীরা আরো চড়া মুল্যে পিয়াজ বিক্রি করছেন ভোক্তা অধিকার আইনকে অমান্য করে।
স্থানীয় ভোক্তারা বলেন, শুধু জরিমানা করে তাদের ছেড়ে দিলে হবে না নুন্যতম তিনদিনের জেল হাজতে পাঠাবে হবে। এতে তাদের আর্থিক জরিমানাও হবে পাশাপাশি সাজাও পাবে।