ঢাকা ০১:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ :
Logo হাজারো অসহায়ের মাঝে ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন মেয়র Logo কল্পলোক আবাসিক মসজিদের জায়গা ব্যক্তির নামে বরাদ্দ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন Logo নিঃস্বার্থে মানব সেবা গ্রুপের ঈদ উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  Logo ফুলপুরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট,ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য Logo রামপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মোঃ আবুল কাশেমের মৃত্যুতে Logo Logo “মুসলিম কমিউনিটি মৌলভীবাজার” এর তাৎপর্য‍‍` শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo মশা নিয়ন্ত্রণে গবেষণার জন্য গবেষণাগার চালুর ঘোষণা দিয়েছেন Logo বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হৃদয়ে -চেতনায় বাংলাদেশ Logo সাউদার্ন ইউনিভার্সিটিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন

নীলফামারীতে বিচারের দাবিতে ভুক্তভোগী পরিবারের সংবাদ সম্মেলন।

নীলফামারী প্রতিনিধি।
  • আপডেট সময় : ১১:০৬:৪১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩ ৫২ বার পড়া হয়েছে
অবৈধভাবে বসত বাড়ীর বেড়া, রাতের আধারে আসবাবপত্র লুটপাট, হামলার প্রতিবাদে এবং সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে নীলফামারীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টায় নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া সরমজামী ইউনিয়নের ছোট ঢিংপাড়ার নিজ বাড়ীতে সংবাদ সম্মেলন করেন ওই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে জুয়েল রানা।সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী জুয়েল রানা বলেন, আমি পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত ও ক্রয়কৃত জমিতে দীর্ঘদিন থেকে বসবাস করে আসছি। ব্যবসায়িক কাজে ও সন্তানদের পড়াশোনার জন্য বর্তমানে রংপুরের তারাগঞ্জে বাড়ী ভাড়া নিয়ে থাকি। প্রতি সপ্তাহের বৃহঃস্পতি, শুক্র ও শনিবার আমরা গ্রামে থাকি। আমার অবর্তমানে সোহেল রানা ঝন্টু (৪৫), রিয়াদ হোসেন (২০), রাকিবুল ইসলাম রনি (২৫), মাসুদ রানা (৪০) ও আতানুর রহমান (৪৫) সহ সকলে মিলে আমার বসতভিটা দখল করার উদ্দেশ্যে আমার অনুপস্থিতিতে বসতভিটার সীমানার চাটি বেড়া, রাতের আধারে ঘরের চাটিবেড়া, আসবাবপত্র খুলে নিয়ে যায়। গত ১৮ ডিসেম্বর রাতে আমার বড় ভাই ওহিদুল ইসলাম (৬০) আমাকে ফোন করে জানায় সোহেল রানা ঝন্টু সহ সকলে মিলে তার আসবাবপত্র, ঘরের চাটিবেড়া খুলে নিয়ে যাচ্ছে।’তিনি আরও বলেন, ‘এমন খবর পাওয়ার পরের দিন আমি গ্রামের বাসায় এসে চাটিবেড়া আসবাবপত্র নিয়ে আসার ব্যাপারে তাদের বাড়ীতে গেলে আসবাবপত্র ও চাটিবেড়া তাদের বাড়ীর উঠানে দেখতে পাই। এসব খুলে নিয়ে আসার কারণ জানতে চাইলে তারা আমার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় আমার চিৎকারের স্থানীয়রা ছুটে এসে তাদের হাত থেকে আমাকে উদ্ধার করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করান। তারা আমার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত জমি ও ক্রয়কৃত জমি ছেড়ে চলে যেতে নানা ধরনের হুমকি প্রদান করছে। আমার বাবা-মা বেচে না থাকায় এখন আমি একা। তাই তারা আমার সাথে এমন করছে। আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার উপর এই জুলুম নির্যাতনের বিচার চাই, নিরাপত্তা চাই এবং এর সুষ্ঠু বিচার চাই।সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী জুয়েল রানার স্ত্রী পারভিন বেগম ও তার বড়ভাই অহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন এবং সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান তারা। এসময়ে বিভিন্ন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

নীলফামারীতে বিচারের দাবিতে ভুক্তভোগী পরিবারের সংবাদ সম্মেলন।

আপডেট সময় : ১১:০৬:৪১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২৩
অবৈধভাবে বসত বাড়ীর বেড়া, রাতের আধারে আসবাবপত্র লুটপাট, হামলার প্রতিবাদে এবং সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে নীলফামারীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টায় নীলফামারী সদর উপজেলার চাপড়া সরমজামী ইউনিয়নের ছোট ঢিংপাড়ার নিজ বাড়ীতে সংবাদ সম্মেলন করেন ওই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে জুয়েল রানা।সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী জুয়েল রানা বলেন, আমি পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত ও ক্রয়কৃত জমিতে দীর্ঘদিন থেকে বসবাস করে আসছি। ব্যবসায়িক কাজে ও সন্তানদের পড়াশোনার জন্য বর্তমানে রংপুরের তারাগঞ্জে বাড়ী ভাড়া নিয়ে থাকি। প্রতি সপ্তাহের বৃহঃস্পতি, শুক্র ও শনিবার আমরা গ্রামে থাকি। আমার অবর্তমানে সোহেল রানা ঝন্টু (৪৫), রিয়াদ হোসেন (২০), রাকিবুল ইসলাম রনি (২৫), মাসুদ রানা (৪০) ও আতানুর রহমান (৪৫) সহ সকলে মিলে আমার বসতভিটা দখল করার উদ্দেশ্যে আমার অনুপস্থিতিতে বসতভিটার সীমানার চাটি বেড়া, রাতের আধারে ঘরের চাটিবেড়া, আসবাবপত্র খুলে নিয়ে যায়। গত ১৮ ডিসেম্বর রাতে আমার বড় ভাই ওহিদুল ইসলাম (৬০) আমাকে ফোন করে জানায় সোহেল রানা ঝন্টু সহ সকলে মিলে তার আসবাবপত্র, ঘরের চাটিবেড়া খুলে নিয়ে যাচ্ছে।’তিনি আরও বলেন, ‘এমন খবর পাওয়ার পরের দিন আমি গ্রামের বাসায় এসে চাটিবেড়া আসবাবপত্র নিয়ে আসার ব্যাপারে তাদের বাড়ীতে গেলে আসবাবপত্র ও চাটিবেড়া তাদের বাড়ীর উঠানে দেখতে পাই। এসব খুলে নিয়ে আসার কারণ জানতে চাইলে তারা আমার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় আমার চিৎকারের স্থানীয়রা ছুটে এসে তাদের হাত থেকে আমাকে উদ্ধার করে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করান। তারা আমার পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত জমি ও ক্রয়কৃত জমি ছেড়ে চলে যেতে নানা ধরনের হুমকি প্রদান করছে। আমার বাবা-মা বেচে না থাকায় এখন আমি একা। তাই তারা আমার সাথে এমন করছে। আমি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার উপর এই জুলুম নির্যাতনের বিচার চাই, নিরাপত্তা চাই এবং এর সুষ্ঠু বিচার চাই।সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী জুয়েল রানার স্ত্রী পারভিন বেগম ও তার বড়ভাই অহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন এবং সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান তারা। এসময়ে বিভিন্ন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।