ঢাকা ০১:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ :
Logo হাজারো অসহায়ের মাঝে ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন মেয়র Logo কল্পলোক আবাসিক মসজিদের জায়গা ব্যক্তির নামে বরাদ্দ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন Logo নিঃস্বার্থে মানব সেবা গ্রুপের ঈদ উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  Logo ফুলপুরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট,ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য Logo রামপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মোঃ আবুল কাশেমের মৃত্যুতে Logo Logo “মুসলিম কমিউনিটি মৌলভীবাজার” এর তাৎপর্য‍‍` শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত Logo মশা নিয়ন্ত্রণে গবেষণার জন্য গবেষণাগার চালুর ঘোষণা দিয়েছেন Logo বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হৃদয়ে -চেতনায় বাংলাদেশ Logo সাউদার্ন ইউনিভার্সিটিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন

ইসরাইলের যের ‘সিক্রেট’

আন্তর্জাতিক ডেক্স
  • আপডেট সময় : ০৮:০৮:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০২৩ ৩২ বার পড়া হয়েছে

বিশ্বের হাতেগোনা যে কয়টি দেশের কাছে পরমাণু বোমা রয়েছে তার মধ্যে ইসরাইল অন্যতম। তবে দেশটির নেতারা কখনও প্রকাশ্যে নিজেদের পরমাণু অস্ত্র থাকার কথা স্বীকার করেননি। আবার কখনও অস্বীকারও করেননি। পরমাণু অস্ত্র সম্প্রসারণ বন্ধে যে ‘নন-প্রোলিফেরাশন ট্রিটি’ (এনপিটি) রয়েছে এবং যাতে বিশ্বের যে চারটি দেশ এখনও স্বাক্ষর করেনি তার একটি ইসরাইল।

 

তবে চলমান ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাতের মধ্যে পরমাণু অস্ত্র থাকার বিষয়টি কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন ইসরাইলি নেতারা। এক ইসরাইলি মন্ত্রী ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় পরমাণু বোমা ফেলার পরামর্শ দিয়েছিলেন যার মধ্যদিয়ে তাদের এতদিনের ‘সিক্রেট’ দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেছে।

 

এমিচাই এলিয়াহু। প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর জোট সরকারের কট্টর ডানপন্থী দল ওজমা ইয়েহুদি’র একজন সদস্য। হেরিটেজ বা সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী এমিচাই সংঘাত ও সহিংসতার উসকানির জন্য পরিচিত। যা চলমান সংঘাতের মধ্যে তার একাধিক মন্তব্যে আরও একবার স্পষ্ট হয়েছে।

 

ইসরাইলের নির্বিচার ও বিরামহীন বিমান হামলায় গাজা উপত্যকা যখন ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে, তখন গাজা শহরের একটি ভিডিও শেয়ার করে তিনি ব্যঙ্গ করে বলেন, ‘গাজার উত্তরাঞ্চল আগের চেয়ে আরও সুন্দর হয়ে উঠেছে। সব গুঁড়িয়ে দাও; এটা খুব সুন্দর।’

 

তবে ফ্যাসিবাদী এই রাজনীতিকের শেষ উক্তিটি ছিল আরও ভয়ঙ্কর ও গুরুতর। তিনি বলেন, ‘গাজার নরক’ তিনি উপভোগ করছেন। যেখানে ইসরাইলের বোমাবর্ষণে ৪ হাজারের বেশি শিশুসহ ১০ হাজারের বেশি নিরীহ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে, সেখানে এক রেডিওতে সাক্ষাৎকারে ইসরাইলি এই নেতা বলেন, গাজায় যে ‘সামরিক অভিযান’ চালানো হচ্ছে তাতে তিনি ‘পুরোপুরি সন্তুষ্ট’ নন। ‘গাজা যুদ্ধে ইসরাইলের অন্যতম বিকল্প হলো পরমাণু বোমা ফেলা।’

স্বাভাবিকভাবেই এসব মন্তব্য বিশ্বের মানবিক ও বিবেকবান মানুষকে চরম ক্ষুব্ধ করেছে। যে ক্ষোভের প্রতিধ্বনি শোনা গেছে পরবর্তী দিনগুলোতে আরব দেশগুলো থেকে পশ্চিমা দেশগুলো পর্যন্ত। তুমুল সমালোচনার মুখে নিজের সেই মন্তব্যে প্রলেপ দিয়ে ক্ষোভ প্রশমনের চেষ্টা করেন মন্ত্রী এমিচাই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘যারা বিবেকবান তাদের কাছে এটা পরিষ্কার যে পরমাণু বিষয়ক মন্তব্যটি রূপক ছিল।’

পরমাণু অস্ত্র নিয়ে সরকারের এক শীর্ষ মন্ত্রীর এই বিস্ফোরক মন্তব্য সরকার প্রধান বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে ব্যাপক বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে ফেলে দেয়। যা থেকে মুক্তি পেতে ‘পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত’ সরকারের কর্মকাণ্ড থেকে মন্ত্রীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

 

গাজায় পরমাণু অস্ত্র নিক্ষেপ করার জন্য ইসরাইলি মন্ত্রীর পরামর্শ নিয়ে দ্রুতই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইসরাইলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সিনিয়র কর্মকর্তা রয়টার্সকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি খুব ভয়াবহ। (এমন পরিস্থিতির মধ্যে) এ ধরনের একটি মন্তব্য বেশ আপত্তিকর।’

অবশ্য ইসরাইলি মন্ত্রীর ওই মন্তব্যকে মার্কিন কর্মকর্তা কোন দৃষ্টিকোন থেকে ‘আপত্তিকর’ বলেছেন তা স্পষ্ট নয় বলেই মনে করেন বিশ্লেষকরা। কারণ গাজায় ইসরাইল প্রকাশ্য মানবাধিকার লঙ্ঘন করলেও যুক্তরাষ্ট্র ‘গুরুতর কিছু দেখেনি’ বলেই জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

এবার দেখা যাক, ইসরাইলি মন্ত্রীর মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়া কি বলেছে। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভার বলেছেন, ‘(ইসরাইলি মন্ত্রীর) এই শব্দগুলো এই ধরনের (পরমাণু) অস্ত্র থাকার ব্যাপারে তেল আবিবের দীর্ঘ গোপন অবস্থান সম্পর্কে বহু প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ইসরাইলের যের ‘সিক্রেট’

আপডেট সময় : ০৮:০৮:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০২৩

বিশ্বের হাতেগোনা যে কয়টি দেশের কাছে পরমাণু বোমা রয়েছে তার মধ্যে ইসরাইল অন্যতম। তবে দেশটির নেতারা কখনও প্রকাশ্যে নিজেদের পরমাণু অস্ত্র থাকার কথা স্বীকার করেননি। আবার কখনও অস্বীকারও করেননি। পরমাণু অস্ত্র সম্প্রসারণ বন্ধে যে ‘নন-প্রোলিফেরাশন ট্রিটি’ (এনপিটি) রয়েছে এবং যাতে বিশ্বের যে চারটি দেশ এখনও স্বাক্ষর করেনি তার একটি ইসরাইল।

 

তবে চলমান ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাতের মধ্যে পরমাণু অস্ত্র থাকার বিষয়টি কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন ইসরাইলি নেতারা। এক ইসরাইলি মন্ত্রী ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় পরমাণু বোমা ফেলার পরামর্শ দিয়েছিলেন যার মধ্যদিয়ে তাদের এতদিনের ‘সিক্রেট’ দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেছে।

 

এমিচাই এলিয়াহু। প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর জোট সরকারের কট্টর ডানপন্থী দল ওজমা ইয়েহুদি’র একজন সদস্য। হেরিটেজ বা সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী এমিচাই সংঘাত ও সহিংসতার উসকানির জন্য পরিচিত। যা চলমান সংঘাতের মধ্যে তার একাধিক মন্তব্যে আরও একবার স্পষ্ট হয়েছে।

 

ইসরাইলের নির্বিচার ও বিরামহীন বিমান হামলায় গাজা উপত্যকা যখন ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে, তখন গাজা শহরের একটি ভিডিও শেয়ার করে তিনি ব্যঙ্গ করে বলেন, ‘গাজার উত্তরাঞ্চল আগের চেয়ে আরও সুন্দর হয়ে উঠেছে। সব গুঁড়িয়ে দাও; এটা খুব সুন্দর।’

 

তবে ফ্যাসিবাদী এই রাজনীতিকের শেষ উক্তিটি ছিল আরও ভয়ঙ্কর ও গুরুতর। তিনি বলেন, ‘গাজার নরক’ তিনি উপভোগ করছেন। যেখানে ইসরাইলের বোমাবর্ষণে ৪ হাজারের বেশি শিশুসহ ১০ হাজারের বেশি নিরীহ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে, সেখানে এক রেডিওতে সাক্ষাৎকারে ইসরাইলি এই নেতা বলেন, গাজায় যে ‘সামরিক অভিযান’ চালানো হচ্ছে তাতে তিনি ‘পুরোপুরি সন্তুষ্ট’ নন। ‘গাজা যুদ্ধে ইসরাইলের অন্যতম বিকল্প হলো পরমাণু বোমা ফেলা।’

স্বাভাবিকভাবেই এসব মন্তব্য বিশ্বের মানবিক ও বিবেকবান মানুষকে চরম ক্ষুব্ধ করেছে। যে ক্ষোভের প্রতিধ্বনি শোনা গেছে পরবর্তী দিনগুলোতে আরব দেশগুলো থেকে পশ্চিমা দেশগুলো পর্যন্ত। তুমুল সমালোচনার মুখে নিজের সেই মন্তব্যে প্রলেপ দিয়ে ক্ষোভ প্রশমনের চেষ্টা করেন মন্ত্রী এমিচাই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘যারা বিবেকবান তাদের কাছে এটা পরিষ্কার যে পরমাণু বিষয়ক মন্তব্যটি রূপক ছিল।’

পরমাণু অস্ত্র নিয়ে সরকারের এক শীর্ষ মন্ত্রীর এই বিস্ফোরক মন্তব্য সরকার প্রধান বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে ব্যাপক বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে ফেলে দেয়। যা থেকে মুক্তি পেতে ‘পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত’ সরকারের কর্মকাণ্ড থেকে মন্ত্রীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

 

গাজায় পরমাণু অস্ত্র নিক্ষেপ করার জন্য ইসরাইলি মন্ত্রীর পরামর্শ নিয়ে দ্রুতই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ইসরাইলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক দেশ যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সিনিয়র কর্মকর্তা রয়টার্সকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি খুব ভয়াবহ। (এমন পরিস্থিতির মধ্যে) এ ধরনের একটি মন্তব্য বেশ আপত্তিকর।’

অবশ্য ইসরাইলি মন্ত্রীর ওই মন্তব্যকে মার্কিন কর্মকর্তা কোন দৃষ্টিকোন থেকে ‘আপত্তিকর’ বলেছেন তা স্পষ্ট নয় বলেই মনে করেন বিশ্লেষকরা। কারণ গাজায় ইসরাইল প্রকাশ্য মানবাধিকার লঙ্ঘন করলেও যুক্তরাষ্ট্র ‘গুরুতর কিছু দেখেনি’ বলেই জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

এবার দেখা যাক, ইসরাইলি মন্ত্রীর মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়া কি বলেছে। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভার বলেছেন, ‘(ইসরাইলি মন্ত্রীর) এই শব্দগুলো এই ধরনের (পরমাণু) অস্ত্র থাকার ব্যাপারে তেল আবিবের দীর্ঘ গোপন অবস্থান সম্পর্কে বহু প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।’